• চুল পড়া বন্ধে থানকুনি পাতা
একুশে নিউজ,18 August 2017 4:53 pm
Logo

প্রচ্ছদ »  ঢাকার দুই মেয়রকে লাল কার্ড প্রদর্শন কারন মশা মারায় ব্যর্থতা

একুশে নিউজ| আপডেট: 4:43 July 15, 2017

ঢাকার দুই মেয়রকে লাল কার্ড প্রদর্শন কারন মশা মারায় ব্যর্থতা

ঢাকার দুই মেয়রকে লাল কার্ড প্রদর্শন কারন মশা মারায় ব্যর্থতা

ফুটবল মাঠে মারাত্মক ফাউলের শাস্তিস্বরূপ খেলোয়াড়দের লাল কার্ড দেখান রেফারি। ঠিক তেমনি মশা মারায় ব্যর্থতার অভিযোগ এনে ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের দুই মেয়রকে টানা ‘১০ মিনিট’ লাল কার্ড দেখানোর কর্মসূচি পালন করেছে লেখক-শিল্পী-ছাত্র-শিক্ষক ও ঢাকার নাগরিকরা। এরপর প্রয়োজনে মেয়রদের অফিসের সামনে গিয়ে লাল কার্ড দেখানোর হুঁশিয়ারি দেন বক্তারা।

১৫ জুলাই শনিবার বিকেলে রাজধানীর শাহবাগে এই কর্মসূচি পালন করেন তারা।

কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারীরা মশা মারতে দুই মেয়রের গাফিলতির অভিযোগ তুলে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হকের বক্তব্যের সমালোচনা করেন। মেয়র আনিসুল হকের মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে বক্তারা বলেন, আপনাকে ঘরে ঘরে মশারি টানাতে হবে না, ঢাকা শহরের মশা দূর করুন।

এ সময় বক্তারা আরও বলেন, ‘আপনাদের ভোট দিয়ে এনেছি, এখন আপনাদের লাল কার্ড দেখাতে হচ্ছে। এখন মশা মারার দাবি নিয়ে নাগরিকদেরই রাজপথে দাঁড়াতে হচ্ছে।’

ব্লগার ও অ্যাক্টিভিস্ট আরিফ জেবতিক বলেন, ‘দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েও দায় এড়ানো চলতে থাকলে একসময় এই প্রতীকী লাল কার্ডের মতো সত্যি সত্যিই নাগরিকরা আপনাদের মাঠের বাইরে পাঠিয়ে দেবে।’

কলামিস্ট লীনা পারভীন বলেন, ‘চিকুনগুনিয়া ছড়ানো এডিস মশা কামড়ায়, ওই সময়ে কেউ মশারি টাঙিয়ে ঘুমায় না, কর্মস্থলে যায়। তাহলে কী আমাদেরকে মশারি পরেই বাইরে বের হতে বলছেন?’

প্রকাশক রবীন আহসান ঢাকা উত্তরের মেয়র আনিসুল হকের চিকুনগুনিয়া নিয়ে দেয়া বক্তব্যের সমালোচনায় বলেন, ‘বাড়ি বাড়ি ঢুকে মশারি টানাতে হবে না। আপনারা জলাবদ্ধতা দূর করেন। বছর জুড়ে খোড়াখুড়ির সংস্কৃতি থেকে বের হয়ে আসুন। জলাশয় ভরাট করে বৃষ্টির পানি গড়ানোর জায়গায় গড়ে তোলা বহুতল ব্যবসায়িক ভবন সরান। চিকুনগুনিয়া যখন পুরো ঢাকা শহরকে পঙ্গু করে রেখেছে তখনই আবার বৃষ্টিপাতে অর্ধেক ঢাকা যেন নদী হয়ে গেছে। অথচ হেসে হেসে বলছেন ‘আমরা কী করব’।’

নাগরিক সংহতির সাধারণ সম্পাদক শরিফুজ্জামান শরিফ বলেন, ‘চিকুনগুনিয়ার ভুক্তভোগীদের স্বাভাবিক জীবন এখন বিপর্যস্ত। অথচ এই রোগ ছড়ানো মশা দমন করা যাদের দায়িত্ব ছিল তারা সেটা পালন করেনি। ঢাকা উত্তরের মেয়র নির্বাচিত হয়ে বলেছিলেন এবার থেকে নাকি ‘সমাধান যাত্রা’ শুরু করবেন। কিন্তু গতকাল তিনি নাগরিকদের ওপরই আক্রোশ ঝেরেছেন, আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন। দক্ষিণের মেয়র সাঈদ খোকনও দোষ চাপিয়েছেন নাগরিকের ওপর।’